সোমবার, ২০শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, বসন্তকাল | ২৩শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি | ৪ঠা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
সোমবার, ২০শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ | ২৩শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি | ৪ঠা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

যে কারণে মোস্তাফিজকে দলে নিয়েছে চেন্নাই

Facebook
LinkedIn
Twitter
WhatsApp
Telegram
Email
Print

ক্রীড়া ডেস্ক:

২০২৪ আইপিএল নিলাম থেকে মোস্তাফিজুর রহমানকে দলে ভিড়িয়েছে চেন্নাই সুপার কিংস। বাংলাদেশ থেকে এবার একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে আইপিএলে খেলবেন এই বাঁহাতি পেসার।
তবে তাকে দলে নেওয়ার পেছনে অনেকেই চেন্নাইয়ের বাণিজ্যিক উদ্দেশ্য দেখছেন।
তবে আইপিএলের পাঁচবারের চ্যাম্পিয়নরা জানালো, মোস্তাফিজকে নেওয়ার চিন্তা আচমকা আসেনি। বরং নিলামের আগে থেকেই তার দিক নজর ছিল তাদের। কারণ হিসেবে তারা বলছে ঘরের মাঠের উইকেটে তার কার্যকারিতার কথা।
গত ১৯ ডিসেম্বর দুবাইয়ে আইপিএলের নিলাম অনুষ্ঠিত হয়। যেখানে ভিত্তিমূল্য ২ কোটি রুপিতে মোস্তাফিজকে দলে নেয় চেন্নাই। একই নিলাম থেকে নিউজিল্যান্ডের অলরাউন্ডার ড্যারিল মিচেল ও তরুণ ব্যাটার রাচিন রবীন্দ্রকেও দলে ভিড়িয়েছে মহেন্দ্র সিং ধোনির দল।
চেন্নাইয়ের ঘরের মাঠ চিপকের এমএ চিদম্বরম স্টেডিয়ামের উইকেট কিছুটা স্লো। এমন পিচে মোস্তাফিজের কার্যকারিতা প্রমাণিত। ঢাকার মিরপুরের পিচেও তার বহু সাফল্যগাঁথার পেছনে ভূমিকা রয়েছে একই রকম পিচের। এমন উইকেটে ‘দ্য ফিজ’-এর স্লোয়ার ও কাটার বেশ গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে।
তাছাড়া চিপকের দুই পাশের বাউন্ডারির বড় সীমানাও মোস্তাফিজ কাজে লাগাতে পারবেন। শনিবার নতুন সাইনিং নিয়ে কথা বলার সময় এসব কারণের কথা উল্লেখ করেন চেন্নাইয়ের প্রধান নির্বাহী কেএস বিশ্বনাথন। তিনি বলেন, ‘আমাদের মনে হয়েছে, মাঠের দুই পাশের সীমানা বিবেচনায় নিয়ে চিপকের উইকেটে মোস্তাফিজ ভালো পছন্দ হতে পারে। (নিলামের আগে থেকেই) আমাদের ভাবনায় এসব ছিল। কিন্তু আমরা নিশ্চিত ছিলাম না যে তাদের পাবো। সৌভাগ্যবশত, এবারের নিলাম আমাদের ভালো কেটেছে। ‘
আইপিএলে মোস্তাফিজের অভিজ্ঞতা দীর্ঘদিনের। এর আগে আরও চারটি ফ্র্যাঞ্চাইজিতে খেলেছেন তিনি। অভিষেক আসরে তিনি খেলেন সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে। প্রথমবারেই দলের শিরোপা জয়ে রাখেন গুরুত্বপূর্ণ অবদান। পরের আসরে একই দলের হয়ে খেললেও প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেননি। এরপর মুম্বাই ইন্ডিয়ান ও রাজস্থান রয়্যালসে খেলেন এই বাঁহাতি ‘কাটার মাস্টার’।
সবশেষ মৌসুমে তাকে দেখা গেছে দিল্লি ক্যাপিটালসের জার্সিতে। তবে এবার তার দল পাওয়া নিয়ে অনিশ্চয়তা ছিল। নিলামে চেন্নাই ছাড়া আর কোনো দল তাকে নিয়ে আগ্রহ দেখায়নি। তবে অনেকের ধারণা, মহেন্দ্র সিং ধোনির দলে নিয়মিত সুযোগ হবে না মোস্তাফিজের। তাকে মূলত ‘সোশ্যাল মার্কেটিং’ এর কাজে লাগানো হবে বলে অভিযোগ অনেকের।
এর আগের মৌসুমগুলোতেও ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো মোস্তাফিজকে নিয়ে ফেসবুকে নিয়মিত পোস্ট দিয়েছে। সেসব পোস্টে লাখো রিঅ্যাকশন এবং হাজারো কমেন্ট পড়েছে। কিন্তু নিয়মিত একাদশে তার সুযোগ মিলেছে কমই। এ নিয়ে সেসব পোস্টের নিচেই বাংলাদেশি সমর্থকরা হতাশা ব্যক্ত করেছেন। চেন্নাইও একই পথে হাঁটছে, এমন অভিযোগ সমর্থকদের। তবে বিষয়টা খোলাসা করেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। তবে আদতেই তাকে বসিয়ে রাখা হবে, নাকি নিয়মিত সুযোগ মিলবে- তা জানতে অপেক্ষায় থাকতে হবে সমর্থকদের।

Facebook
LinkedIn
Twitter
WhatsApp
Telegram
Email
Print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিজ্ঞাপন দিন