সোমবার, ২০শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, বসন্তকাল | ২৩শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি | ৪ঠা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
সোমবার, ২০শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ | ২৩শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি | ৪ঠা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

মেলায় প্রিয় লেখকের বই খুঁজে বেড়ান পাঠকরা

Facebook
LinkedIn
Twitter
WhatsApp
Telegram
Email
Print

নিজস্ব প্রতিনিধি:

অমর একুশে বইমেলা মানেই এক সাহিত্যানুরাগী ও বইপ্রেমীদের জন্য জমজমাট আয়োজন। নতুন বইয়ের খোঁজে যেমন অপেক্ষায় থাকেন পাঠকরা, তেমনি বইয়ের পাতার ঘ্রাণ তাদের মন মাতিয়ে তোলে। মেলায় পাঠকদের বড় একটি অংশ আসে প্রিয় লেখকের বই খুঁজতে। আর প্রিয় লেখকের কোনও নতুন বই আসে, তাহলে তো কথাই নেই।
তবে বইমেলার চতুর্থ দিন রবিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) কর্মব্যস্ত দিনে গত দুদিনের তুলনায় পাঠকের উপস্থিতি কিছুটা কম লক্ষ করা গেছে। কিছু স্টলে পাঠকদের ভিড় দেখা গেছে। সেসব স্টল প্যাভিলিয়নে পছন্দের লেখকের বই খুঁজছেন তারা।
সরেজমিনে দেখা যায়, মেলায় আমেজ কিছুটা হালকা মেজাজে থাকলেও অন্যধারা, অন্যপ্রকাশ, প্রথমা, ঐতিহ্য কিছুটা ভিড় ছিল। এসব স্টলে পাঠকরা খুঁজেছেন সাদাত হোসাইন, হুমায়ূন আহমেদ, আনিসুল হক, আসিফ নজরুলের বই। এ ছাড়া অনেক পাঠকের পছন্দের লেখক রয়েছেন বলেও জানান প্রকাশকরা।
অন্যধারা প্রকাশনী সরকারি নির্বাহী ব্যবস্থাপক মাহমুদ হোসাইন বলেন, আমাদের এখানে মূলত পাঠকরা নিজেদের পছন্দের লেখকের বই খুঁজতে আসেন। এর মধ্যে রয়েছেন সাদাত হোসাইন। এ ছাড়া মনির হোসেনসহ আরও কয়েকজনও রয়েছেন। বইয়ের নাম নিয়েও অনেকে খুঁজতে আসেন। যেমন ইলমা বেহরোজের ‘পদ্মজা’ বইটি এখন ভালো যাচ্ছে।
ভূমি প্রকাশের স্বত্বাধিকারী জাকির হোসাইন বলেন, আমাদের এখানে বিষয় পছন্দ করেই পাঠক বেশি আসেন। তবে কিছু লেখক আছেন তারা যেদিন আসেন, সেদিন তাদের ভক্তরা বেশি আসেন। লেখক বই বিক্রিতে ভালো একটি প্রভাব রাখেন।
প্রথমা প্রকাশনের প্যাভিলিয়নে কথা হয় নাহিদ পারভেজের সঙ্গে। তিনি বলেন, আমি আসিফ নজরুল স্যারের লেখার খুব ভক্ত। স্যারের লেখা আমরা খুব ভালো লাগে। তার বই মানুষকে চিন্তা করতে শেখায়। ভিন্নভাবে ভাবতে শেখায়। এবার মেলায় স্যারের ‘আমি আবু বকর’ বইটি এসেছে, বইটি সংগ্রহ করলাম আজ। আর আমি মূলত লেখক দেখেই বই কিনতে স্বাচ্ছন্দবোধ করি।
অন্যধারা থেকে ইলমা বেহরোজের ‘পদ্মজা’ কিনেছেন মারিয়া হাসান। তিনি জানান, ইলমা বেহরোজ তার পছন্দের লেখিকা। সে জন্যই তার বই কিনেছেন। তিনি যদি মেলায় আসেন, তাহলে তার কাছ থেকে অটোগ্রাফ ও ছবি নিতে আবার আসবেন তিনি।

মেলায় নতুন বই
আজ বইমেলার চতুর্থ দিনে নতুন বই এসেছে ৬৬টি। এর মধ্যে গল্প ৯টি, উপন্যাস ১২টি, প্রবন্ধ ৫টি, কবিতা ১০, গবেষণা ১টি, জীবনী ১১টি, মুক্তিযুদ্ধ ১টি, ভ্রমণ ৪টি, ইতিহাস ১টি, স্বাস্থ্য ২টি, রম্য ৬টি, ধর্মীয় ১টি, অনুবাদ ২টি এবং অন্যান্য ১টি।

মূল মঞ্চের আয়োজন
এদিন বিকাল ৪টায় বইমেলার মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় ‘স্মরণ: কাঙাল হরিনাথ মজুমদার’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। এ সময় প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন তপন মজুমদার। আলোচনায় অংশ নেন জাফর ওয়াজেদ ও আমিনুর রহমান সুলতান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মুনতাসীর মামুন। আলোচনার শুরুতে কাঙাল হরিনাথ মজুমদারের জীবন ও কর্মভিত্তিক প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শিত হয়।
প্রাবন্ধিক তপন মজুমদার বলেন, বাউল সংগীতকে সামাজিক জীবনধারার সঙ্গে সম্পৃক্ত করার মানসে ঊনবিংশ শতকে যে কয়েকজন সাহিত্যসাধক নিজেদের সাহিত্য সম্পাদককে নিয়োজিত করেছিলেন কাঙাল হরিনাথ তাদের অন্যতম পথিকৃৎ। কাঙাল হরিনাথ হিরণ্ময় প্রতিভার অধিকারী ছিলেন। কাঙাল হরিনাথের জীবন-দর্শন, আধ্যাত্মিক ভাবনা ও মরমি মানসের পরিচয় পাওয়া যায় তার বাউল সংগীতের মধ্যে। এই বাউল সংগীতের কথা ও সুর এবং সহজ-সরল প্রাণস্পর্শী ভাব কী শিক্ষিত আর কী নিরক্ষর, সবাইকেই মুগ্ধ করে।সভাপতি মুনতাসীর মামুন বলেন, কাঙাল হরিনাথ মজুমদার ছিলেন একই সঙ্গে বিদ্রোহী ও অধ্যাত্মবাদী। তার কর্মের ব্যাপ্তি ছিল অনেক দূর বিস্তৃত। সৃজনশীল বুদ্ধিজীবী হিসেবে তিনি প্রান্তিক অবস্থানে থেকেও সমাজ সংস্কারের উদ্যোগ নিয়েছেন।

লেখক বলছি
লেখক বলছি অনুষ্ঠানে নিজেদের নতুন বই নিয়ে আলোচনা করেন চলচ্চিত্রকার ও লেখক তানভীর মোকাম্মেল, শিশুসাহিত্যিক বেণীমাধব সরকার, গবেষক কাজল রশীদ শাহীন এবং কবি ফারুক আহমেদ।

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান
সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে কবিতা পাঠ করেন কবি আনিসুল হক, ফারুক মাহমুদ এবং ঝর্না রহমান। আবৃত্তি পরিবেশন করেন আবৃত্তিশিল্পী জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়, ডালিয়া আহমেদ এবং নায়লা তারান্নুম চৌধুরী। এ ছাড়া ছিল অনুপম বিশ্বাসের পরিচালনায় সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘বেসিক একাডেমি অব ইয়োগিক অ্যাকুস্টিক ট্রেডিশনাল ইন্সট্রুমেন্ট’ এবং মো. সাজেদুল ইসলাম ফাতেমীর পরিচালনায় সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘নকশিকাঁথা’র সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। সংগীত পরিবেশন করেন কণ্ঠশিল্পী ফরিদা পারভীন, চন্দনা মজুমদার, আব্দুল লতিফ শাহ, আরিফ দেওয়ান এবং সরকার আমিরুল ইসলাম।

সোমবারের সময়সূচি
মেলার পঞ্চম দিন সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারি) মেলা শুরু হবে বিকাল ৩টায়, চলবে রাত ৯টা পর্যন্ত। বিকাল ৪টায় বইমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে সার্ধশত জন্মবার্ষিক শ্রদ্ধাঞ্জলি মোহাম্মদ রওশন আলী চৌধুরী শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন মাসুদ রহমান।
আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন ইসরাইল খান ও তপন বাগচী। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন সাইফুল আলম।

Facebook
LinkedIn
Twitter
WhatsApp
Telegram
Email
Print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিজ্ঞাপন দিন