শুক্রবার, ১৭ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, বসন্তকাল | ২০শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি | ১লা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
শুক্রবার, ১৭ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ | ২০শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি | ১লা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বিএনপি নেতাদের গ্রেফতার নিয়ে কৃষিমন্ত্রীর বক্তব্য তার ব্যক্তিগত: ওবায়দুল কাদের

Facebook
LinkedIn
Twitter
WhatsApp
Telegram
Email
Print

নিজস্ব প্রতিনিধি:

বিএনপি নেতাকর্মীদের গ্রেফতার নিয়ে সম্প্রতি কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাকের দেওয়া বক্তব্য তার ব্যক্তিগত মতামত বলে দাবি করেছেন আওয়ামী লীগের ওবায়দুল কাদের। সোমবার (১৮ ডিসেম্বর) দুপুরে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগের সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেন দলটির সাধারণ সম্পাদক।
সম্প্রতি একটি বেসরকারি টেলিভিশনে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আব্দুর রাজ্জাক জানান, নির্বাচনে আনার জন্য বিএনপির নেতাদের কারাগার থেকে মুক্তির প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। তবে বিএনপি সেই প্রস্তাব গ্রহণ করেনি।
এ প্রসঙ্গে প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আওয়ামী লীগ কোনও দেউলিয়া দল নয়। আওয়ামী লীগ দলীয় নিয়মনীতি ভঙ্গ করে, গণতন্ত্রের প্রতি আওয়ামী লীগের যে কমিটমেন্ট তা বিনষ্ট করে; এ ধরনের উদ্ভট প্রস্তাব বিএনপি বা কাউকে দেবে— এটা কখনও সঠিক হতে পারে না। এ ধরনের প্রস্তাব সরকার এবং দল দেয়নি।’
এসময় আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে নিয়ে দেশের ৪০ জন বুদ্ধিজীবীর দেওয়া বিবৃতির সমালোচনা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আগুন সন্ত্রাস বন্ধের আহ্বান না জানিয়ে যারা নির্বাচন নিয়ে কথা বলছেন তারা বিএনপির দালাল। এসব বুদ্ধিজীবীরা বিএনপির রাজনৈতিক এজেন্ডা বাস্তবায়ন করছে।’
ওবায়দুল কাদের জানান, এ পর্যন্ত ২৭টি দল এবারের নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে, প্রার্থী সংখ্যা ১ হাজার ৮৮৬ জন। স্বতন্ত্র প্রার্থী রয়েছেন ৩৫৭ জন। নির্বাচনের সর্বাত্মক প্রস্তুতি চলছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।
আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, আগামী ২৭ ডিসেম্বর দলের সভাপতি বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে আওয়ামী লীগের নির্বাচনি ইশতেহার ঘোষণা করা হবে।
বিএনপি নেতা মঈন খানের উদ্দেশে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘৭ জানুয়ারি সারা দেশের দিকে একটু নজর দিয়েন, ভোটকেন্দ্রের দিকে একটু তাকায়েন, তাহলে বুঝতে পারবেন সারা দেশের মানুষ ভোট দেওয়ার জন্য কতটা উন্মুখ হয়ে আছে।’
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপির আন্দোলনকে মানুষ বিশ্বাস করে না। আগামী ৫ বছরও তারা আন্দোলনের ডাক দিয়ে যাবে।‘
এ সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, মির্জা আজম, সুজিত রায় নন্দী, দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, ধর্ম সম্পাদক সিরাজুল মোস্তফা এবং শিক্ষা ও মানবসম্পদ সম্পাদক শামসুন্নাহার চাপা প্রমুখ।

Facebook
LinkedIn
Twitter
WhatsApp
Telegram
Email
Print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিজ্ঞাপন দিন