শুক্রবার, ১৭ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, বসন্তকাল | ২০শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি | ১লা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
শুক্রবার, ১৭ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ | ২০শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি | ১লা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বায়ান্ন বছরের তরুণ, উপহারে একক কনসার্ট

Facebook
LinkedIn
Twitter
WhatsApp
Telegram
Email
Print

বিনোদন ডেস্ক:

জন্ম-সনদ সাক্ষী দিচ্ছে দীর্ঘ বায়ান্ন বছরের; সেটিকে মিথ্যা দাবি করে ক্যারিয়ার-গ্রাফ বিনয়ের সঙ্গে গানের টালিখাতা এগিয়ে বলছে- মাত্র তিরিশ, তাও এক বছর কম! অথচ বাস্তবতা এর পুরোটাই ভিন্ন। বয়স নয়, অজস্র বাংলা গানের শ্রোতা ‘আকাশ চুরি’ করে ক্যানভাস বানিয়ে এঁকে চলেছে; ‘সানগ্লাস’ চোখে ‘পরী’র হাত ধরে মধ্য-দুপুরে এগিয়ে চলা এক নন্দিত তরুণের ছবি, নাম তার বাপ্পা মজুমদার। যার গলায়-বলায় মেলে সহস্র মাইল চলার প্রতিধ্বনি।
বয়সের হিসাবে মতবিরোধ আছে, থাকতে পারে। কিন্তু বাপ্পা মজুমদার একটি বিষয়ে নিজেকে বিতর্কের ঊর্ধ্বে তুলে রেখেছেন আলগোছে, যাকে সবাই শুদ্ধতার জীবন্ত প্রতীক বলেই বিবেচনা করেন; কী সংগীতে কী ব্যক্তিত্বে।
শুভ জন্মদিন শুভাশিস মজুমদার বাপ্পা। কিংবদন্তি সংগীত পরিবারে যে রাজপুত্রের জন্ম হয়েছে বায়ান্ন বছর আগে, এই দিনে (৫ ফেব্রুয়ারি, ১৯৭২)।
শুভেচ্ছা জানিয়ে বায়ান্ন-তরুণের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইতেই বললেন, ‘ধন্যবাদ। বাবা-মা থেকে শুরু করে প্রতিটি মানুষের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই, যারা এই মুহূর্ত পর্যন্ত নানাভাবে আমার সামনে, পেছনে ও পাশে আছেন। প্রতিটি মানুষই আমাকে একটু একটু করে এগিয়ে যেতে সাহায্য করে চলেছেন, কারণ আজও মনে হয় সদ্য হাঁটতে শেখা নবজাতক আমি। মানুষ ও প্রকৃতি দেখে আজও আমি ক্ষণে ক্ষণে মুগ্ধ হই।’
জন্মদিনে কোনও কনসার্ট রাখেননি। রেকর্ডিংও নয়। দিনটিকে পরিবার ও বন্ধুদের সঙ্গে কাটাতে চান। জানালেন বাপ্পা মজুমদার।
তবে বেশ ক’দিন ধরেই জন্মমাসে দারুণ একটি একক আয়োজন উপহারের প্রস্তুতি নিচ্ছেন এই সংগীতশিল্পী। মূলত জন্মদিনের রেশ ধরে ভক্তদের বিশেষ উপহারের উপলক্ষ তৈরি করছেন সাম্প্রতিক রাত-দিন। জানান, ২৩ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট (কেআইবি) মিলনায়তনে আয়োজন করা হয়েছে তার দ্বিতীয় একক কনসার্ট। যার নাম রেখেছেন, ‘বাপ্পা মজুমদার অডিসি’।
তিন দশকের সমৃদ্ধ ক্যারিয়ারে এটি তার একক দ্বিতীয় আয়োজন। যার শুরুটা হয়েছিলো ২০২২ সালে। সেবারের আয়োজনটি দিয়ে বাপ্পা মজুমদার যেন নিজের নতুন বেঞ্চমার্ক তৈরি করে দিলেন কনসার্ট অ্যারেনায়। জানান দিলেন, একজন প্রকৃত শিল্পীর একক কনসার্ট কেমন হওয়া চাই। যদিও সেটি ছিলো প্রস্তুতি পর্ব, ধারণা করা হচ্ছে প্রথম আয়োজনের অভিজ্ঞতা নিয়ে এবার হবে মূল পর্ব।
এবারের একক আয়োজন প্রসঙ্গে বাপ্পা মজুমদার বলেন, ‘তিরিশ বছরের বেশি সময় ধরে গানের সঙ্গে আছি। এর আগে একক কনসার্ট একটিই করেছিলাম। সেখান থেকে যে পরিমাণ সাড়া পেয়েছি, সেটা আসলে আশা করিনি। পেয়েছি আক্ষেপ বা ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশও। অনেকেই সেই কনসার্টে অংশ নিতে পারেননি। তাছাড়া প্রথম আয়োজনটি ছিলো আমার জন্য টেস্ট এক্সামের মতো। কারণ, আগে কখনও এমন আয়োজনের অভিজ্ঞতা ছিলো না। সব মিলিয়ে এবারের আয়োজনটির পরিকল্পনা করছি। আশা করছি, ২৩ ফেব্রুয়ারি আপনাদের প্রত্যাশা পূর্ণ করতে পারবো।’
কারখানার আয়োজনে ‘বাপ্পা মজুমদার অডিসি’ সরাসরি উপভোগ করতে হলে গুনতে হবে ১৫শ’ টাকা (রেগুলার) অথবা ৩ হাজার টাকা (ভিআইপি)। তারও আগে গেট সেট রক সাইটে গিয়ে করতে হবে প্রি-রেজিস্ট্রেশন।
২০২২ সালের সেপ্টেম্বরে আয়োজিত বাপ্পার প্রথম একক কনসার্টে অতিথি শিল্পী হিসেবে গান শোনান কণা, শুভ ও কোনাল। এবারের আয়োজনে থাকছেন শুধুই মাশা ইসলাম। বাপ্পা নিজেও বললেন, ‘আমার আগে ছোট্ট একটি পরিবেশনা করবে মাশা ইসলাম। আমার খুবই প্রিয় একজন নবীন শিল্পী। ওর পরিবেশনার পর আমার গানের অতীত, বর্তমান ও ভবিষ্যৎ নিয়ে আয়োজনটি হবে।’
২৩ ফেব্রুয়ারি বিকাল সাড়ে ৫টা থেকে শুরু হওয়ার কথা রয়েছে মূল আয়োজন। আর দর্শকদের জন্য কেআইবি মিলনায়তনের দরজা খোলা হবে সাড়ে ৪টায়।
বলা দরকার, ১৯৯৫ সালে ‘তখন ভোরবেলা’ নামের একক অ্যালবাম দিয়ে অভিষেক হয় কণ্ঠশিল্পী বাপ্পা মজুমদারের। তবে ৯০ দশকের শুরু থেকেই তিনি সংগীতজীবন শুরু করেন গিটার বাদক হিসেবে। তিন দশকে তার সুর-সংগীত-কণ্ঠে ১১টি একক অ্যালবাম প্রকাশ পায়। এর বাইরে ব্যান্ড দলছুটের ৭টি ছাড়াও অসংখ্য দ্বৈত ও মিশ্র অ্যালবাম তো রয়েছেই। নিজের বাইরে অন্যদের জন্যও নাটক, অডিও আর সিনেমায় অনেক গান তৈরি করেছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাওয়া এই সংগীত পরিচালক।

Facebook
LinkedIn
Twitter
WhatsApp
Telegram
Email
Print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিজ্ঞাপন দিন