সোমবার, ২০শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, বসন্তকাল | ২৩শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি | ৪ঠা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
সোমবার, ২০শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ | ২৩শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি | ৪ঠা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

চীনে শক্তিশালী ভূমিকম্পে নিহত শতাধিক

Facebook
LinkedIn
Twitter
WhatsApp
Telegram
Email
Print

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

চীনের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে ভূমিকম্পে অন্তত ১১১ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরও ২২০ জনের মতো আহত হয়েছেন। স্থানীয় সময় সোমবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম সিনহুয়ার বরাত দিয়ে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।
ইউএসজিএস জানিয়েছে, রিখটার স্কেলে ভূমিকম্পটির মাত্রা ছিল ৫.৯। তবে চীনা কর্তৃপক্ষ বলছে এ মাত্রা ছিল ৬.২। সিনহুয়া জানিয়েছে, গানসু ও কিংহাই প্রদেশের সীমান্ত অঞ্চলে ভূমিকম্প আঘাত হানে। হতাহতের পাশাপাশি সেখানের ভবনগুলো ভেঙে পড়েছে।
দ্য ইউরোপিয়ান মেডিটেরিয়ান সিসমোলজিক্যাল সেন্টার (ইএমএসসি) জানিয়েছে, ভূমিকম্পটি ছিল ৬ দশমিক ১ মাত্রার। এটির উৎপত্তিস্থল গানসু প্রদেশের রাজধানী লানঝোর থেকে ১০২ কিলোমিটার দক্ষিণ পশ্চিমে এবং ভূপৃষ্ঠের ৩৫ কিলোমিটার গভীরে।
ভূমিকম্প আঘাত হানার পর পানি ও বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যাহত হয়েছে। ফুটেজে দেখা গেছে উদ্ধারকারীরা ধসে পড়া ভবনের ধ্বংসস্তূপের মধ্য দিয়ে উদ্ধারকাজ চালাচ্ছেন। স্থানীয় কর্মীদের সহায়তা করার জন্য চীনা সরকার উদ্ধারকর্মীদের দল পাঠিয়েছে। ঘরের মেঝেতেও ধ্বংসাবশেষ দেখা গেছে, ছাদ আংশিকভাবে ভেঙে পড়েছে।
চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং গানসুতে পূর্ণ উদ্ধারকাজ চালানোর নির্দেশ দিয়েছেন। এক বিবৃতিতে প্রেসিডেন্ট বলেছেন, উদ্ধার, সময়মতো আহতদের চিকিৎসা এবং হতাহতের সংখ্যা কমানোর জন্য সকল প্রচেষ্টা করা উচিত।
রাষ্ট্রীয় মিডিয়া সংস্থা সিনহুয়া মঙ্গলবার সকালে জানিয়েছে, গানসুতে ১০০ জন নিহত এবং ৯৬ জন আহত হয়েছেন এবং কিংহাইতে ১১ জন নিহত এবং ১২৪ জন আহত হয়েছেন।
গত সেপ্টেম্বরে চীনের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় সিচুয়ান প্রদেশে ৬.৬ মাত্রার ভূমিকম্পে ৬০ জনেরও বেশি মানুষ নিহত হয়।
গানসুতে ১৯২০ সালের ভূমিকম্পে ২ লাখের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছিল যা ২০ শতকের সবচেয়ে ভয়ংকর ঘটনার একটি বলে ধরা হয়।

Facebook
LinkedIn
Twitter
WhatsApp
Telegram
Email
Print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিজ্ঞাপন দিন