শুক্রবার, ১৭ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, বসন্তকাল | ২০শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি | ১লা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
শুক্রবার, ১৭ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ | ২০শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি | ১লা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

গাজীপুর-১ আসন, ট্রাকপন্থীর মারধরে আহত সংখ্যালঘু নৌকার কর্মী

Facebook
LinkedIn
Twitter
WhatsApp
Telegram
Email
Print

পলাশ বর্মন :

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে পোষ্টার লাগানোকে কেন্দ্র করে ট্রাকপন্থী এক ইউপি সদস্যের (মেম্বার) মারধরে নৌকার সমর্থক সংখ্যালঘু এক শীল আহত হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার টানবড়ইবাড়ী এলাকায় এ মারধরের ঘটনা ঘটে।
এলাকাবাসী ও ভোক্তভোগী সংখ্যালঘু নৌকার কর্মী সুত্রে জানা গেছে, আসন্ন জাতীয় দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে গাজীপুর-১ আসনে আওয়ামীলীগের মনোনিত প্রার্থী আলহাজ্ব এ্যাড. আ. ক. ম মোজাম্মেল হক নৌকা প্রতীক এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ট্রাক প্রতীক নিয়ে লড়ছেন রেজাউল করিম রাসেল। কালিয়াকৈর উপজেলার টানবড়ইবাড়ী এলাকায় বৃহস্পতিবার সকালে নৌকা মার্কার পোষ্টার লাগাতে যান কয়েকজন কর্মী। এসময় ওই এলাকার শীল শান্ত রাজবংশী তার দোকানের পাশে নৌকার পোষ্টার লাগাতে বলেন। এসময় তার দোকানের পাশে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকপন্ত্রী ও চাপাইর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য (মেম্বার) আব্দুর রউফ খান। পরে ট্রাকপন্ত্রী ওই ইউপি সদস্য ক্ষেপে গিয়ে নৌকাপন্থী ওই সংখ্যালঘু শীল শান্ত রাজবংশীকে মারধর করে। এতে আহত ওই শীল ও তার পরিবারের সদস্যরা আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। খবর পেয়ে ওই ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
অভিযুক্ত ওই ইউপি সদস্য আব্দুর রউফ খান জানান, আমি শান্তকে মারধর করিনি। কয়েক জন ছেলে তাকে মারধর করতে থাকলে আমি তাদের সরিয়ে দেই। তবে কারা তাকে মারধর করে? তাদের নাম বলতে পারেননি ওই ইউপি সদস্য।
ওই ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি হাজী মোঃ নুরল ইসলাম জানান, ওই ইউপি সদস্য গাজীপুর-১ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ রেজাউল করিম রাসেলের ট্রাক মার্কার সমর্থক। কিন্তু তিনি যে মার্কার সমর্থক হউক না কেন? তাকে মারধর করা ঠিক হয়নি। বিষয়টি উর্ধ্বতন নেতাদের সঙ্গে কথা বলে আমরা আইনী ব্যবস্থায় যাবো।
এব্যাপারে গাজীপুর-১ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ রেজাউল করিম রাসেল জানান, এরকম কোনো বিষয় আমার জানা নেই। নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে ও উত্তেজিত করার জন্য অনেকেই অনেক কিছু করতে চায়। তবে আমার সকল কর্মীকে শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের পরিবেশ বজায় রাখার জন্য অনুরোধ করেছি।
উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মুরাদ কবির জানান, মারধরের শিকার নৌকার কর্মী একজন সংখ্যালঘু পরিবারের লোক। স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্দেশে নৌকার কর্মীর উপর এ হামলার ঘটনা ঘটেছে।
সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হোসাইন মোহাম্মদ হাই জকী জানান, এ ধরণের ঘটনা আমার জানা নেই। এ ধরণের ঘটনা ঘটলে এটা আচরণ বিধি লঙ্ঘন। তবে অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Facebook
LinkedIn
Twitter
WhatsApp
Telegram
Email
Print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিজ্ঞাপন দিন