বুধবার, ৮ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, বসন্তকাল | ১১ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি | ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
বুধবার, ৮ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ | ১১ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি | ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

অবশেষে ঢাকা উৎসবে দেখা দেবে ‘সাবিত্রী’!

Facebook
LinkedIn
Twitter
WhatsApp
Telegram
Email
Print

বিনোদন ডেস্ক:

মুক্তিযুদ্ধ আর তার পরবর্তী সময়ের কঠিন বাস্তবতাকে ঘিরে নির্মিত সিনেমা ‘সাবিত্রী’। সরকারি অনুদানে সিনেমাটি নির্মাণ করেছেন পান্থ প্রসাদ। দেশের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে প্রিমিয়ার হবে সিনেমাটির।
ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের এবার ২২তম আসর। ২০ জানুয়ারি পর্দা উঠেছে আসরের। রেইনবো ফিল্ম সোসাইটি আয়োজিত এ চলচ্চিত্র উৎসবে ৭৪টি দেশের ২৫০টি সিনেমা প্রদর্শিত হবে। এর মধ্যে বাংলাদেশ প্যানোরোমা বিভাগে প্রিমিয়ার হবে ‘সাবিত্রী’র।
সাবিত্রী নামের এক বীরাঙ্গনা, বীর মুক্তিযোদ্ধা চা শ্রমিককে কেন্দ্র করে এগিয়ে গেছে সিনেমার গল্প। ১৯৭১ সালে যুদ্ধের সময় অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছিল সাবিত্রীর জীবন। তেমনি স্বাধীন দেশে যখন যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শুরু হয়, তখন তার সাক্ষী হতে গিয়ে সাবিত্রী ও তার যুদ্ধশিশু মঙ্গলকে টিকে থাকার জন্য প্রতিটি মুহূর্ত লড়াই করে যেতে হয়েছে। একাত্তর ও বর্তমান সময়ের মিশেলে সিনেমাটির গল্প লিখেছেন তুষার আবদুল্লাহ।
সিনেমাটি প্রসঙ্গে নির্মাতা পান্থ প্রসাদ বলেন, ‘‘সাবিত্রী’র সঙ্গ আমাদের পুরো টিমের অক্লান্ত পরিশ্রম, ঘাম জড়িয়ে আছে। সিনেমাটির কাজ করতে গিয়ে অর্থ সংকটে পড়তে হয়েছিল, তার মধ্যে হানা দিয়েছে করোনা। সব মিলিয়ে কাজটি শেষ করতে সময় লেগে যায়। এ সিনেমায় আমরা দুটি সময়কে পাশাপাশি ধরে গল্প বুনেছি। একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে নারীর ত্যাগ এবং একুশ শতকে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার প্রেক্ষাপটে এক যুদ্ধসন্তান ও তার মায়ের টিকে থাকার সংগ্রাম এবং এক নিগূঢ় অন্তর্বেদনার গল্প রূপায়িত হয়েছে এই সিনেমায়।’’
২৪ জানুয়ারি বিকাল পাঁচটায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির আর্ট গ্যালারি অডিটরিয়ামে দেখানো হবে সিনেমাটি। ‘সাবিত্রী’ সিনেমার বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন রোকেয়া প্রাচী, অনন্ত হীরা, বৈশাখী ঘোষ, নার্গিস, সৈকত সিদ্দিকী, শাহরিয়ার বকুল, বৈদ্যনাথ সাহা, শ্যামল, আরতী প্রমুখ।
বহতা ফিল্মসের ব্যানারে নির্মিত সিনেমাটির চিত্রগ্রহণ করেছেন ড্যানিয়েল ড্যানি ও কমল চন্দ্র দাস। সম্পাদনা, শব্দশৈলী ও রঙ বিন্যাস করেছেন সুজন মাহমুদ।

Facebook
LinkedIn
Twitter
WhatsApp
Telegram
Email
Print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিজ্ঞাপন দিন